মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

উপজেলা প্রশাসনের পটভূমি

গঙ্গানদী এবং ব্রহ্মপুত্রনদ বিধৌত পলিমাটিতে গড়া  গাঙ্গেয় ব-দ্বীপের যমুনা-ব্রহ্মপুত্র ঝিনাই নদীর ত্রি-মোহনীয় বালুকা বেলায় গড়ে উঠতে থাকে প্রায় সাত শত বৎসরের পুরাতন এই জনপদ। এই জনপদই অনেক ইতিহাসের তথা সংস্কৃতি-ঐতিয্যের মধ্যদিয়ে অতিক্রান্ত হয়ে আজকের এই উপজেলা মেলান্দহ।

এই উপজেলার নামকরণ নিয়ে যেটুকু শোনা যায় সেটা হচ্ছে : এর পূর্ব নাম মিলন দহ। আবার কেউ কেউ বলেন যে মেলা দহের মিলনে এই জনপদ। তাই এর নাম মেলা দহ। তবে মেলান্দহে প্রাচীন একটি গ্রন্থাগার ছিল তার নাম ছিল মিলন মন্দির। মিলন মন্দিরটি ছিল বর্তমান মেলান্দহ বাজার সংলগ্ন কেন্দ্রীয় শ্রী শ্রী কালী মাতার মন্দির প্রাঙ্গণে অথ্র্যাৎ মেলান্দহ কেন্দ্রীয় মসজিদ এর দক্ষিণ পার্শে অবস্থিত ছিল বৃটিশ শাসন পূর্ব সময়কাল থেকেই। আবার বৃটিশ শাসন আমলের শেষ সময়ে চারদশকের মাঝামাঝি সময়েই ধংশ হয়ে গেছে বৃটিশ নিপিরণ অত্যাচার।

বহু (মেলা/অনেক) দহ/বিলের মিলনে চর জেগে ওঠা এই স্থল ভুমি। তাই এর নাম মিলনদহ। জনশ্রুতিতে মিলন দহ মেলা দহ : তারপর মেলান্দহ তে এসে ঠেকেছে। একটি দুটি বাড়ী তারপর গ্রাম। গ্রাম থেকে গ্রামের বিস্তার। তারপর থানা।  থানা থেকে উপজেলা। বর্তমানের মেলান্দহ উপজেলা। এর পেছনে রয়েছে জানা নাজানা অনেক কথা কতো কিংবদন্তী কথকতার ইতিহাস। মেলান্দহ এখন বৃহত্তর ময়মনসিংহের জামালপুর জেলার গুরুত্বপূর্ণ উপজেলা। এই উপজেলাতে দুটি রেলওয়ে স্টেশন আছে একটি স্টেশনের নাম মেলান্দহ বাজার। স্বাধীনতা পূর্বে বৃটিশ এবং পাক্স্তিান শাসন আমলে দাগী নাম ছিল এই স্টেশনের, দ্বিতীয়টির নাম দুমুঠ রেলওয়ে স্টেশন। ১৯৫২ সালে মেলান্দহ থানা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৮৪ সালে উপজেলায় উন্নীত হয়।